আরিয়ানের জামিনের পর আরও বিপাকে সমীর ওয়াংখেড়ে জাল সার্টিফিকেট দিয়ে চাকরি করার অভিযোগ

Spread the love

 

আরিয়ানের জামিনের পর আরও বিপাকে সমীর ওয়াংখেড়ে জাল সার্টিফিকেট দিয়ে চাকরি করার অভিযোগ

 

ওয়েব ডেস্ক:-  মুম্বাই  থেকে দিল্লিতে ট্রান্সফার , আরিয়ানের জামিনের পর আরও বিপাকে সমীর ওয়াংখেড়ে জাল সার্টিফিকেট দিয়ে চাকরি করার অভিযোগ  । শাহরুখ-পুত্র আরিয়ান খান  জামিন পেয়ে গিয়েছেন। মন্নতেও পৌঁছে গিয়েছেন তিনি। তবে তাঁর গ্রেপ্তারির নেপথ্যে থাকা এনসিবি কর্তা সমীর ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ উঠেই চলেছে। এবার জাল সার্টিফিকেট দিয়ে চাকরি পাওয়ার অভিযোগ উঠল মুম্বই নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর জোনাল হেডের বিরুদ্ধে। ভীম আর্মি ও স্বাভিমানি রিপাবলিক পার্টির অভিযোগ, নকল তফশিলি শংসাপত্র দিয়েই চাকরি পেয়েছে ওয়াংখেড়ে।
আরিয়ান খানের গ্রেপ্তারির পর থেকেই তাঁকে নানা ভাবে টার্গেট করা হচ্ছে।  ব্যক্তিগত সম্পর্কের প্রসঙ্গ টেনে সম্মানহানির চেষ্টা করা হচ্ছে। এই অভিযোগ করেছিলেন সমীর ওয়াংখেড়ে। প্রথমে মুম্বই পুলিশের কমিশনারকে বিস্তারিত জানিয়ে চিঠি লিখেছিলেন। পরে আবার সুরক্ষা চেয়ে বম্বে হাই কোর্টের দ্বারস্থ হন তিনি।

৩ অক্টোবর শাহরুখ-পুত্র আরিয়ানকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারপর থেকে সংবাদের শিরোনামে সমীর ওয়াংখেড়ের নাম। এর আগে ২৫ কোটি টাকা ঘুষ নিয়ে আরিয়ান মামলার দফারফা করার অভিযোগও আনা হয়েছে। আবার অর্থের বিনিময়ে সাক্ষী জোগাড়ের অভিযোগও উঠেছে। এর মধ্যেই আবার মহারাষ্ট্র সরকারের মন্ত্রী নবাব মালিক সোশ্যাল মিডিয়ায় পুরনো একটি বার্থ সার্টিফিকেট শেয়ার করেন। যেখানে সমীর ওয়াংখেড়ের বাবার নাম দাউদ ওয়াংখেড়ে হিসেবে দাবি করা হয়।  সার্টিফিকেটটি সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করেই নবাব মালিক লেখেন, “এখান থেকে সমীর দাউদ ওয়াংখেড়ের মিথ্যে সূত্রপাত।”

নবাব মালিকের এই অভিযোগের জবাব দিয়েছিলেন সমীর ওয়াংখেড়ে। পালটা বিবৃতি দিয়ে সমীর ওয়াংখেড়ে জানান, তাঁর বাবার নাম ধ্যানদেব কাচরুজি ওয়াংখেড়ে। তিনি পুণের স্টেট এক্সাইজ বিভাগের সিনিয়র পুলিশ ইনস্পেক্টর ছিলেন।  তাঁর  ও তাঁর পরিবারের অযথা সম্মাহানি করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন এনসিবি কর্তা। এমন পরিস্থিতিতেই এবার ভীম আর্মি ও স্বাভিমানি রিপাবলিক পার্টি ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে নকল তফশিলি সার্টিফিকেট জমা দিয়ে চাকরি পাওয়ার অভিযোগ এনেছেন। কাস্ট সার্টিফিকেট ভেরিফিকেশন কমিটিকে বিষয়টি খতিয়ে দেখার অনুরোধ জানিয়ে চিঠিও লিখেছেন। যদিও এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনও প্রতিক্রিয়া সমীর ওয়াংখেড়ে দেননি।

সৌজন্য :- সংবাদ প্রতিদিন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.