বাংলাকে চাপে রাখতে চুপচাপ NRC- র ঘুঁটি সাজাচ্ছে বিজেপি?

Spread the love

চুপচাপ বঙ্গে NRC- র ঘুঁটি সাজাচ্ছে বিজেপি?

 

ওয়েব ডেস্ক :-   ছ’জনের কোর টিম নিয়ে বাংলায় NRC-র রাস্তা তৈরি করছে বিজেপি! এরকমই চমকে দেওয়ার মতো তথ্য জানা যাচ্ছে সূত্র মারফত। নারদা কেস, আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এসব নিয়ে বিতর্ক জিইয়ে রেখে আসল কাজটি করে নিতে চান মোদী-শাহ? অতীতের দিকে চোখ ফেরালেই বোঝা যাবে কাশ্মীরে ৩৭০ তুলে দেওয়া হোক কিংবা নোটবন্দি! আসল ইস্যু থেকে বিরোধীদের নজর ঘোরাতে নানা রকম পন্থা নিয়েছেন শাহ-দোভাল জুটি। এবারেও কি একই রাস্তায় হাঁটছেন বিজেপির চাণক্য? এই প্রশ্নেরই উত্তর খোঁজার চেষ্টা করল ওয়ানইন্ডিয়া বাংলা।

কাদের নিয়ে ছ’জনের দল তৈরি হয়েছে?

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচন শেষ হওয়ার পরেই দিল্লি চলে গিয়েছিলেন বোলপুরের বিজেপি প্রার্থী অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়।
এখনও তিনি দিল্লিতেই রয়েছেন। সূত্রের খবর অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়, শুভেন্দু অধিকারী, দিলীপ ঘোষ, শিবপ্রকাশ চৌহানের মতো পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা এবং তার সঙ্গে কেন্দ্রীয় সুরক্ষা উপদেষ্টা অজিত দোভালের প্রতিনিধিরা থাকছেন এই দলে। গত সপ্তাহ থেকেই সারা দেশ জুড়ে পশ্চিমবঙ্গের বর্তমান পরিস্থিতির কথা প্রচার করছে এই টিম। ওয়েবিনারের মাধ্যমে প্রতিটি রাজ্য থেকেই কয়েকলক্ষ লোকের কাছে বঙ্গের বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরছেন অর্নিবাণরা।
পশ্চিমবঙ্গের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে অন্য রাজ্যগুলিকে কী বলছে বিজেপি?

মূলত ভোট পরবর্তী হিংসাতে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের ঘরছাড়া ও খুন হওয়ার কথা অন্য রাজ্যের মানুষের কাছে তুলে ধরা হচ্ছে ওয়েবিনারে। কিন্তু সূত্রের খবর শুধু এখানেই থেমে থাকছে না বিজেপি। পাশাপাশি ভোটের সময় সীমান্ত টপকে বাংলাদেশ থেকে কিছু মানুষ এদেশে এসে ভোট দেয়, এই বিষয়টি অনুপ্রবেশ এবং দেশের সুরক্ষার প্রশ্ন হিসেবে তুলে ধরা হচ্ছে দেশের অন্য রাজ্যের মানুষের কাছে। দেশের বিজেপি শাসিত এবং অবিজেপি রাজ্যগুলির প্রতিনিধি এবং সাধারণ মানুষের কাছে পশ্চিমবঙ্গ নিয়ে এইসব তথ্য তুলে দিয়ে বঙ্গে NRC করা নিয়ে অন্য রাজ্যগুলির মনোভাব বুঝতে চাইছে মোদী-শাহরা। পাশাপাশি বাংলার বিজেপি সমর্থকদের অবস্থার কথা সারা দেশের মানুষের কাছে পৌঁছে দিয়ে তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধ মনোভাবও তৈরি করা সম্ভব হচ্ছে।
সিএএ নিয়ে পদক্ষেপ শুরু করেছে কেন্দ্র

ইতিমধ্যেই সিএএ, সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট অ্যাক্ট নিয়ে পদক্ষেপ শুরু করেছে কেন্দ্র। আফগানিস্তান, বাংলাদেশ, মায়ানমার, পাকিস্তান প্রভৃতি দেশ থেকে ভারতে চলে আসতে বাধ্য হওয়া হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখদের নাগরিকত্বের জন্য আবেদন শুরু করার নির্দেশ দিয়েছে মোদী সরকার। গত ২৮ মে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পক্ষ থেকে জারী করা একটি নোটিশে অ-মুসলিমদের ভারতীয় নাগরিকত্বের আবেদন করতে বলা হয়েছে। এই নোটিশের বিরোধিতা করে সুপ্রিমকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে ইউনিয়ন মুসলিম লিগ।
রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতামত

পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি নিয়ে আগ্রহ রয়েছে এরকম বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে বঙ্গে NRC কিংবা CAA লাগু করতে হলে ভীষণ বাধার সামনে পড়তে হবে মোদী-শাহকে। রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল ছাড়াও বামদলগুলি এবং কংগ্রেসও একযোগে NRC এবং CAA এর বিরোধিতা করে এসেছে শুরু থেকেই। এনআরসি শুরু করতে গেলে তা আরও জোরদার হবে। কাশ্মীরের ৩৭০ তোলার সময় যত সেনাবাহিনীর প্রয়োজন ছিল তার থেকেও বেশি সংখ্যায় সেন্ট্রাল ফোর্সের প্রয়োজন হতে পারে বঙ্গে এনআরসির জন্য।

 

সৌজন্য :- ওয়ান ইন্ডিয়া বাংলা

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.