নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে এবার `দেশদ্রোহীতা`র অভিযোগ এনে মামলা করতে যাচ্ছেন খোদ বিজেপি`র সংসদ সদস্য সুব্রহ্মণ্যম স্বামী

Spread the love

নিউজ ডেস্ক:- একটার পর একটা বেসরকারী করণ ,একটার পর একটা রাষ্ট্রায়ত্ত সম্পত্তি বিক্রী । এবার নমোজীর বিরুদ্ধে ই মামলা করতে চলেছেন বিজেপির ই এক নেতা। ভারতের প্রধানমন্ত্রী ও বিজেপি প্রধান নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে এবার `দেশদ্রোহীতা`র অভিযোগ এনে মামলা করতে যাচ্ছেন খোদ বিজেপি`র সংসদ সদস্য সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। এয়ার ইন্ডিয়ার সত্ত্ব বিক্রি নিয়ে মোদী সরকারের পদক্ষেপ ঘোষণার পরপরই নিজের এমন সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন বিজেপি`র এই নেতা।

সোমবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে `এয়ার ইন্ডিয়া` বিক্রি সংক্রান্ত কেন্দ্রীয় সরকারের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরই দুপুরে বিজেপির পার্টিলাইনের বাইরে গিয়ে দলীয় প্রধান নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহীতার মামলা করতে আদালতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী।

এদিন কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, আগামী ১৭ মার্চের মধ্যে যারা এয়ার ইন্ডিয়ার সত্ত্ব কিনতে ইচ্ছুক সেই সংস্থাগুলি যেন নিজেদের নাম নথিভূক্ত করে নেয়। আর এমন সরকারি বিজ্ঞপ্তির পর রীতিমতো ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছেন বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী । আর তার জেরেই এদিন টুইটার পোস্টে মোদীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আদালতে যাওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন তিনি।

এদিন সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর বক্তব্যে উঠে আসে দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ। তিনি বলেন, এয়ার ইন্ডিয়া বেসরকারিকরণের কাজ শুরু হয়েছে। এই পদক্ষেপ দেশ বিরোধী।

এরপর তিনি বলেন, ` সরকারের পদক্ষেপ আমাকে আদালতে যেতে বাধ্য করছে। আমরা আমাদের পরিবারিক রুপো বিক্রি করতে পারিনা।`

স্পষ্ট ভাষায় সুব্রহ্মণ্যম টুইটারে জানিয়ে দিয়েছেন, মোদী সরকারের এমন পদক্ষেপে তিনি বিজেপির বিরুদ্ধেই যেতে চান আদালতে। মোদী সরকারের এমন পদক্ষেপকে তিনি `দেশদোহীতা` বলেও আখ্যা দিয়েছেন।

এদিকে, কংগ্রেসও এয়ার ইন্ডিয়ার বেসরকারীকরণ নিয়ে প্রবল ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। কংগ্রেসের পক্ষ থেকে কপিল সিব্বল অভিযোগ করেছেন যে, কেন্দ্রীয় সরকারের দেশ চালাবার মতো টাকা নেই। আর তাই এমন বেসরকারীকরণের পদক্ষেপ নিচ্ছে বিজেপির নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার।

সৌজন্য:- অমৃতবাজার/এসএইচএম

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.