গৌড় এক্সপ্রেস এ ছিনতাই রেলের নিরাপত্তা নিয়ে অসন্তুষ্ট যাত্রীরা

Spread the love

গৌড় এক্সপ্রেসে লুটপাট জখম 2

অয়ন বাংলা,নিইজ ডেস্ক:-রেলের নিরাপত্তা আবারো প্রশ্ন চিহ্ন। গত 29/06/2019,
রাত দু’টো কুড়ি। সবে নওয়াদার ঢাল স্টেশন পেরিয়েছে মালদহগামী গৌড় এক্সপ্রেস। হঠাৎ বাতানুকূল টু টিয়ার এ-২ ও এ-৩ কামরায় এক দল দুষ্কৃতী চড়াও হয়। তারা যাত্রীদের ব্যাগপত্র লুটপাট শুরু করে। সেই সময়ে তাদের বাধা দিতে যান দুই মহিলা যাত্রী রিচা জিহান ও দেবলীনা সিংহ। এর মধ্যে রিচা এক বিএসএফ আধিকারিকের স্ত্রী। দুষ্কৃতীরা তাঁদেরও মারধর করে ব্যাগ, মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ ছিনিয়ে নেয়। পরের স্টেশন গুসকরার আগে চেন টেনে দুষ্কৃতীরা ট্রেন থেকে নেমে যায়। যাত্রীরা প্রথমে সাঁইথিয়ায় পরে মালদহ স্টেশনে অভিযোগ দায়ের করেন।

মাত্র সাত দিন আগেই গৌড় এক্সপ্রেসের একটি সংরক্ষিত কামরায় এক কলেজ ছাত্রীকে যৌন নিগ্রহ করে এক মদ্যপ যুবক। সে দিন যাত্রীরা সকলে মিলে রুখে দাঁড়িয়ে মদ্যপ যুবককে পুলিশের হাতে তুলে দেন। শুক্রবার ওই নিগৃহীত যাত্রীদের অভিযোগ, কুড়ি মিনিট ধরে লুটপাট চললেও রেলের কোনও পুলিশ আসেননি। তাঁদের পাশের বাতানুকূল প্রথম শ্রেণির কামরায় ছিলেন বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু। তার পরেও নিরাপত্তা ব্যবস্থা এত ঢিলেঢালা কেন, সেই প্রশ্নও উঠেছে। খগেনকে এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি মেনে নেন, যে পরিমাণ নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকা উচিত, তা ট্রেনে ছিল না। তিনি বলেন, ‘‘গৌড় এক্সপ্রেসে নিরাপত্তা জোরদার করা প্রয়োজন। বিষয়টি রেল মন্ত্রকে জানাব।’’ দিল্লি থেকে রেল মন্ত্রক সূত্রে জানানো হয়েছে, গৌড় এক্সপ্রেসে নিরাপত্তা বাড়ানো হবে। সন্দেহভাজনদের স্কেচ তৈরি করা এবং যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলাও হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.