করোনা সতর্কতার জের, আগামিকাল বিকেল ৪টে থেকে লকডাউন হয়ে যাচ্ছে কলকাতা-সহ সমস্ত পুরশহরগুলি

Spread the love

কলকাতা: করোনা মোকাবিলায় বড় সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার৷ সোমবাার বিকেল ৫টা থেকে ২৭ মার্চ মধ্যরাত পর্যন্ত লক-ডাউনের বিজ্ঞপ্তি জারি রাজ্যের৷ কলকাতা-সহ রাজ্যের ২৩টি জেলা সদরে এই লক-ডাউন কার্ষকর করা হবে বলে সরকারিভাবে জানানো হয়েছে৷ এই সময়ে প্রকাশ্যে ৭ জনের বেশি জমায়েত হওয়া যাবে না৷

লক-ডাউন অর্থাৎ অফিস, দোকানপাট থেকে গোডাউন সব কিছু বন্ধ থাকবে৷ তবে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস যেমন মেডিসিন দোকান, মুদির দোকান, সবিজ বাজার এবং মাছ, মাংস, ডিম ও দুধের দোকান খোলা থাকবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে পরিষ্কার জানানো হয়েছে৷ খোলা থাকবে এছাড়াও চালু থাকবে অন-লাইন শপিং ব্যবস্থা৷ খোলা থাকবে ব্যংক, এটিএম, পোস্ট অফিস, ইন্টারনেট পরিষেবা৷

করোনা সতর্কতার জের, আগামিকাল বিকেল ৪টে থেকে লকডাউন হয়ে যাচ্ছে কলকাতা-সহ সমস্ত পুরশহরগুলি। লকডাউনে মিলবে শুধুমাত্র অত্যাবশ্য়কীয় পণ্য। ৩১ মার্চ পর্যন্ত থাকবে লকডাউন পরিস্থিতি। কেন্দ্রের সঙ্গে মুখ্যসচিবদের বৈঠকের পর এমনটাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সতর্কতা অবলম্বনে ইতমধ্যেই দেশের মোট ৭৫টি জায়গায় লকডাউন ঘোষণা হয়েছে। যদিও পেট্রোপণ্য যেমন ডিজেল, কেরোসিন, ন্যাপথা, সলভেন্ট খাদ্যদ্রব্য, ওষুধের দোকান,প্যাথলজি ল্যাবের মতো অত্যবশ্যকীয় পরিষেবা পাবে সাধারণ মানুষ। অ্যাম্বুলেন্স, হাসপাতাল, চিকিৎসা ব্যবস্থা লকডাউনের আওতার বাইরে। সবজি বাজার, মুদিখানা, গ্যাসের দোকান, ওষুধের দোকান, মাছ বাজার, সরকারি বাস। সাধারণ মানুষের জন্য আর কিছুক্ষণের মধ্যেই সরকারি বিজ্ঞপ্তি জারি করে বিস্তারিত জানানো হবে।

লকডাউন নিয়ে অযথা আতঙ্ক নয় এমনই বার্তা দিয়েছে প্রশাসন। ইতিমধ্যেই করোনা সংক্রমণ রুখতে আন্তঃরাজ্য বাস যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে রাজ্য সরকার। ২১ তারিখ মধ্যরাত থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত ভিন রাজ্য থেকে পশ্চিমবঙ্গে কোনও যাত্রীবাহী বাস আসবে না এবং যাবে না। পরিবহন দফতরের এই নির্দেশ প্রতিটি জেলার জেলাশাসক, পুলিস সুপার, রিজিওনাল ট্রান্সপোর্ট অফিসারদের পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, রবিবার দুপুরেই জানানো হয়েছিল রেল পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হবে রেলপরিষেবা, চলবে না মেট্রোও। আজ মধ্যরাত থেকেই লাগু হচ্ছে এই নিয়ম। সব দূরপাল্লার মেল, এক্সপ্রেস, প্যাসেঞ্জার ট্রেন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিল রেলওয়ে বোর্ড। ফলে কার্যত আশিংক লক ডাউনের পথে দেশ। শহর ও শহরতলি থেকে কোনও ট্রেন ছাড়বে না। বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে মেট্রো পরিষেবাও। কাল থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত চলবে না মেট্রো রেলও। তবে, অত্যাবশকীয় পণ্য পরিবহণের জন্য শুধুমাত্র চালু থাকবে মালগাড়ি।

মারণ ভাইরাস মোকাবিলায় সচেতনতার বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
নিজস্ব প্রতিবেদন: দেশজুড়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। রাজ্যেও করোনা আক্রান্ত বেড়ে ৪। এবার তাই ভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধে আরও সতর্ক হল রাজ্য সরকার। আংশিক শাটডাউনের পথে হাঁটল নবান্ন। বন্ধ করে দেওয়া হল ভিন রাজ্যের বাস পরিষেবা। রেলকে চিঠি দিয়ে দূরপাল্লার ট্রেন বন্ধের আর্জি জানানো হল। এরা পাশাপাশি চিড়িয়াখানা,

মারণ ভাইরাস মোকাবিলায় সচেতনতার বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জনগণের কাছে তাঁর অনুরোধ, যাঁরা বিদেশ থেকে বা অন্য রাজ্য থেকে এসেছেন, তাঁরা ১৪ দিন বাড়িতেই থাকুন। আতঙ্কিত হবেন না, আতঙ্ক ছড়াবেন না। কোনও অবস্থাতেই আইন হাতে তুলে নেবেন না, পরিস্থিতি বুঝে স্থানীয় পুলিশ-প্রশাসনকে খবর দিন।

বিদেশ থেকে এলেই বাড়তি সংক্রমণের আশঙ্কা। ফলে বিদেশ ফেরতদের দিকেই এবার কড়া নজর প্রশাসনের। যে কোনও দেশ থেকে এলেই ১৪দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। গত দুই সপ্তাহে যাঁরা বিদেশ থেকে এসেছেন তাঁদেরও ঘরবন্দি থাকার নির্দেশ। না মানলে কড়া পদক্ষেপের হুঁশিয়ারি দিয়েছে রাজ্য।

বাঁচার উপায় জন দূরত্ব সেদিকে তাকিয়েই নয়া নির্দেশিকা নবান্নের। রেস্তোরাঁ, পাব, বার, ক্লাব, নাইটক্লাব বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত। মাজাস পার্লার, বিনোদন পার্ক, মিউজিয়াম, চিড়িয়াখানাও বন্ধ রাখা হচ্ছে। রবিবার ভোর ৬টা থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন। জরুরি নয় এমন যে কোনও সামাজিক অনুষ্ঠান ও মেলামেশা থেকে জনগণকে দূরে থাকতে বলেছে সরকার। ইকো পার্ক, নিউটাউন বিজনেস ক্লাব, আরবান ভিলেজ, বিশ্ব বাংলা গেট, নজরুলতীর্থ, রবীন্দ্রতীর্থ, মাদার ওয়াক্স মিউজিয়াম ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

আগেই আন্তর্জাতিক বিমান বন্ধের আর্জি জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এবার ভিন রাজ্যের ট্রেনও বন্ধ করতে বলল রাজ্য। এবার ২২ মার্চ মধ্যরাত থেকে ভিন রাজ্যের কোনও ট্রেন যাতে রাজ্যে না আসে তার অনুরোধ। রেলওয়ের চেয়ারম্যানকে চিঠি দিয়েছেন মুখ্যসচিব। বলা হয়েছে,”নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের জেরে ২২ মার্চ মধ্যরাত থেকে পশ্চিমবঙ্গের বাইরে থেকে আসা ট্রেনগুলি বন্ধ করা হোক। আপাতত তা কার্যকর থাকুক ৩১ মার্চ পর্যন্ত। জমায়েত নিয়ন্ত্রণ ইতিমধ্যেই ব্যবস্থা নিয়েছে রাজ্য সরকার। এব্যাপারে আপনার তরফে সহযোগিতা দরকার।”

পরিবহণ দফতরের সচিব বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়ে দিয়েছে, রাজ্যে নভেল ভাইরাস নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতি বিবেচনা করে ২১ মার্চ (শনিবার) মধ্যরাত থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত ভিন রাজ্যে বাস পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হল। একইভাবে ভিন রাজ্যের বাসগুলিকে ঢুকতে দেওয়া হবে না রাজ্যে। সংশ্লিষ্ট সবপক্ষকে এব্যাপারে উপযুক্ত পদক্ষেপ করতে অনুরোধ করা হচ্ছে।”

পরিস্থিতির দিকে নজর রেখে স্বাস্থ্য দফতরের সব কর্মীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে। নবান্নে হেল্প লাইন খুলেছে অসামরিক প্রতিরক্ষা দফতর। রিস্থিতি পর্যালোচনায় সোমবার নবান্নে ডাকা হয়েছে সর্বদল বৈঠক !

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.