রঞ্জন গগৈয়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করলেন মধু পূর্ণিমা , রাজ্যসভায় মনোনয়নের জন্য

Spread the love

অয়ন বাংলা,নিউজ ডেস্ক:- রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের অনুমোদনে প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে রাজ্যসভার সদস্য হিসেবে মনোনীত করার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করলেন শিক্ষাবিদ মধু পূর্ণিমা কিসওয়ার। আবেদনে প্রাক্তন প্রধান বিচারপতির রাজ্যসভার সদস্য হিসাবে মনোনয়নে স্থগিতাদেশ চাওয়া হয়েছে।

BREAKING : Madhu Kishwar Moves SC Challenging Ex-CJI Gogoi’s Rajya Sabha Nomination [Read Petition] https://t.co/WwFVwqRjNI

— Live Law (@LiveLawIndia) March 18, 2020

সোমবার এক নির্দেশিকা জারির মাধ্যমে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের মনোনীত প্রার্থী হিসাবে ভারতের প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে রাজ্যসভায় পাঠানোর বন্দোবস্ত করা হয়।

তারপরেই বিরোধী সহ তাঁর সতীর্থরাও এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে শুরু করেন। বিচার ব্যবস্থা কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে বিকিয়ে গেছে বলে উঠেছে অভিযোগ। রাম মন্দির সহ বহু বিতর্কিত এনআরসি মামলা ও রাফাল মামলায় একটি বিশেষ দলের ফায়দা করে দেওয়ার রিটার্ন গিফ্ট হিসাবে তিনি রাজ্য সভার সদস্য পদ পেয়েছেন বলে অভিযোগ ওঠে। উত্তাল হয় সোশ্যাল মিডিয়া! তাঁর সতীর্থ বিচারপতিগণও একে একে মুখ খোলায় বাঁধে বিতর্ক। প্রথমে মদন লকুর , তারপর কুরিয়ান জোসেফ।

প্রথমে জাস্টিস মদন লকুর মন্তব্য করেন জল্পনা ছিল যে গগৈকে কোনো না কোনো সম্মান জানানো হবে। রাজ্যসভায় মনোনয়ন আশ্চর্যের ব্যাপার নয় । আশ্চর্যের ব্যাপার হল এটা যে ব্যাপারটা এত তাড়াতাড়ি ঘটল। এই সিদ্ধান্তের ফলে বিচার ব্যবস্থার স্বাধীনতা-নিরপেক্ষতা প্রশ্নের মুখে পড়বে। তিনি প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে মন্তব্য করেন- এটা কি বিচার ব্যবস্থার পতন নয়?

তারপরই, আরেক সতীর্থ প্রাক্তন বিচারপতি জাস্টিস কুরিয়ান জোসেফ আরো এক ধাপ এগিয়ে মন্তব্য করেন, “রাজ্যসভার সদস্য পদ গ্রহণ করার মাধ্যমে প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বিচার ব্যবস্থা সম্বন্ধে সাধারণ মানুষের বিশ্বাস নড়িয়ে দিয়েছেন।” তিনি ‘বিস্মিত’ হয়ে আরও মন্তব্য করেন “বিচার ব্যবস্থার নিরপেক্ষতা ও স্বাধীনতার সঙ্গে আপস করেছেন” গগৈ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে তৎকালীন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি জাস্টিস দীপক মিশ্রের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন করে হৈচৈ ফেলে দিয়েছিলেন জাস্টিস রঞ্জন গগৈ, জাস্টিস চেলামেশ্বর, জাস্টিস মদন লকুর ও জাস্টিস কুরিয়ান জোসেফ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.