মুর্শিদাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ে পঠনপাঠন চালু, এনআরসি ও কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে হরিহর পাড়ায় এসডিপিআই এর মিছিল ও সমাবেশ

Spread the love

মুর্শিদাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ে পঠনপাঠন চালু, এনআরসি ও কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে হরিহর পাড়ায় এসডিপিআই এর মিছিল ও সমাবেশ

ইমাম সাফী :-  কেন্দ্রীয় সরকারের নয়া কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে দিল্লিতে লক্ষ লক্ষ কৃষকের চলছে অনির্দিষ্টকালের জন্য প্রতিবাদ । দিল্লির কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়েছেন দেশের একাধিক সামাজিক সংগঠন ও রাজনৈতিক দল গুলি । প্রথম থেকেই কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে সোচ্চার হয়েছে এসডিপিআই । গত বছর করোনা ভাইরাসের কারণে এনআরসি ও সিএএ বিরোধী আন্দোলন কিছুটা স্থিমিত হলেও আবারও রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে আন্দোলনের প্রস্তুতি নিয়েছে এসডিপিআই ।শিক্ষা, সামাজিক, অর্থনৈতিক সমস্ত দিক থেকে পিছিয়ে পড়া একটি জেলা হলো মুর্শিদাবাদ । মুর্শিদাবাদে বিশ্ব বিদ্যালয়ের দাবিতে দীর্ঘ আন্দোলনের পর বিশ্ব বিদ্যালয়ের ঘোষণা হলেও পঠনপাঠন চালু করার ব্যাপারে টালবাহানা করছে বর্তমান রাজ্য সরকার ।

অবিলম্বে মুর্শিদাবাদ বিশ্ব বিদ্যালয়ে পঠনপাঠন চালু, কৃষি আইন , এনআরসি, সিএএ বাতিলের দাবিতে পথে নামলো এসডিপিআই। আজ মুর্শিদাবাদের হরিহরপাড়া বাজারে এসডিপিআই এর পক্ষ থেকে মিছিল ও জনসভা করা হয় ।
উক্ত মিছিল ও জনসভায় উপস্থিত ছিলেন এসডিপিআই এর রাজ্য সভাপতি তায়েদুল ইসলাম, পপুলার ফ্রন্টের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক ডক্টর মিনারুল সেখ,বিশিষ্ট সমাজকর্মী শেখর দত্ত, জঙ্গিপুর হাইস্কুলের শিক্ষক মনিরুজ্জামান, এসডিপিআই এর জেলা সম্পাদক মাসুদুল ইসলাম, জেলা সহ সভাপতি রাহিদ হোসেন মন্ডল সহ অন্যান্য নেতৃত্ব ।
এইদিনের সভায় উপস্থিত সকল বক্তারা তাঁদের বক্তৃব্যে কেন্দ্রীয় সরকারের জনবিরোধী নীতি ও কৃষি আইন যে পুঁজিপতি কর্পোরেটদের সুবিধার জন্য আনা হয়েছে তার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন ।পাশাপাশি বিভেদমূলক এনআরসি ও সিএএ আইনের ভয়াবহতা তুলে ধরেন । অন্যদিকে মুর্শিদাবাদের অনুন্নয়ন নিয়ে রাজ্য সরকারের সমালোচনা করতে লক্ষ্য করা যায় ।অন্যদিকে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা গুলো মুর্শিদাবাদের যুবকদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেন ।
অর্ণব গোস্বামীর সাথে প্রাক্তন বিএআরসি এর সিইও পার্থ দাসগুপ্তর কিছু ব্যক্তিগত চ্যাট ফাঁস হওয়ার পর পরে দেশজুড়ে শুরু জোর সমালোচনা। ব্যক্তিগত সুবিধার জন্য ওই তার সাথে যোগাযোগ রাখতো অর্ণব।এমনকি বালাকোটের মতো এয়ার স্ট্রাইকের মতো ঘটনা আগে থেকেই জানতেন অর্ণব। তথ্য ফাঁস হওয়ার পর রাজনৈতিক মহলে শোরগোল শুরু হয়েছে।জাতীয় নিরাপত্তার সঙ্গে আপস করার অভিযোগ উঠেছে রিপাবলিক টিভির এডিটর ইন চিফ অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে ।এই বিষয় নিয়ে সরকারের নীরবতা নিয়ে মুখ খুললেন এসডিপিআই। এসডিপিআই মনে করে অর্ণব গোস্বামী জাতীয় নিরাপত্তার জন্য বিপদজনক। অবিলম্বে অর্ণব গোস্বামীকে গ্রেফতার ও তার বিরুদ্ধে উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের দাবি জানানো হয় এসডিপিআই এর এই সভা থেকে ।গ্রেফতারের পাশাপাশি অর্ণব গোস্বামীর চ্যানেল রিপাবলিক টিভির লাইসেন্স বাতিলের দাবি জানানো হয় এসডিপিআই এর পক্ষ থেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.