অত্যাধিক গরমে  রিক্সা চালকের মৃত্যু বেহালায়

Spread the love

 

অত্যাধিক গরমে  রিক্সা চালকের মৃত্যু বেহালায়

পরিমল কর্মকার (কলকাতা) : অত্যাধিক গরমে মুখে মাস্ক পড়ে দিনের পর দিন রিক্সা চালানোর ফলে মৃত্যু ঘটলো এক রিক্সা চালকের। সোমবার রাত প্রায় সাড়ে ৭টা নাগাদ এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে বেহালার নেতাজী সড়কে।

ঘটনায় প্রকাশ, মৃত রিক্সা চালক এলাকায় বাটুল (৫০) নামেই পরিচিত। তার বাড়ি বেহালা থানা এলাকার ভাটিখানায়। জানা গিয়েছে, অন্যান্য দিনের মত সোমবারও রিক্সা চালিয়েছে সে। কিন্তু ওইদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা নাগাদ নেতাজী সড়ক ক্লাবের কাছে রাস্তায় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। তবে তার অসুস্থতার ব্যাপারটি আশপাশের দোকানদার কিংবা পথচারীরা কেউই ঘুণাক্ষরেও টের পায়নি। রিক্সার মধ্যেই হঠাৎ ঢলে পড়ে সে। আশপাশের থেকে লোকজন ছুটে এসে দেখেন রিক্সার পা-দানিতেই পড়ে রয়েছে বাটুল নামের ওই রিক্সাচালক।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে বেহালা থানার পুলিশ। বাটুলের বাড়িতেও খবর দেওয়া হয়। এরপরই তার বাড়ির লোক ও পাড়া-পড়শিরা এসে হাজির হয় ঘটনাস্থলে। তাদের মধ্যে দু-একজন বললো, “খুব ভালো মানুষ ছিল বাটুল দা। খুব খাটতে পারতো। তবে অত্যাধিক গরমে তেমন ভাবে সে রিক্সা চালাতে পারছিল না।”কয়েকদিন আগেই নাকি সে বলেছিল, “খুব গরম পড়েছে। রিক্সা চালানো যাচ্ছেনা, মুখে মাস্ক পড়লে, খুব গরম লাগে, দম বন্ধ হয়ে আসে। আরও কষ্ট হয়। কিন্তু মাস্ক না পড়লে তো পুলিশ ধরবে, তাই কষ্ট হলেও পড়ি।” পাশ থেকে এক মহিলা বলে উঠল, “কি আর করবে ? পেটের জ্বালা, বড় জ্বালা। তাইতো কষ্ট করছিল।”

মাস্ক পড়া অবস্থায় মৃত বাটুলকে দেখে তার পাড়া-পড়শিরা অনেকেই বলল,”করোনা বাটুল দাকে মারল না, করোনা প্রতিরোধ করতে গিয়ে নিজেই মারা গেল সে। প্রতিরোধ করতে না গেলে হয়তো বাটুল দা অকালে চলে যেত না।”

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.