গরু চুরির অপরাধে তিনজন সংখ্যালঘুকে পিটিয়ে হত্যা ত্রিপুরাতে

Spread the love

প্রনব সরকার, আগরতলা: গরু চুরি  করা পালানোর পথে গণধোলাইয়ে মৃত্যু হল তিন চোরের। ঘটনাস্থল ত্রিপুরার  তেলিয়ামুড়া মহকুমার কল্যাণপুর এবং মুঙ্গিয়াকামি এলাকায়। উদ্ধার হয়েছে চুরি যাওয়া ৫টি গরু-সহ একটি গাড়ি। মৃত তিনজনের বাড়ি সোনামুড়া এলাকায়।

তেলিয়ামুড়া মহকুমার বিভিন্ন এলাকায় গরু চোরের উৎপাতে অতিষ্ঠ এলাকার গোপালকরা। রাত বিরেতে সুযোগ পেলেই তাঁদের বাড়ি থেকে দুধেল গরু-সহ বকনা বাছুর চুরি করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল বলে অভিযোগ। পুলিশকে জানিয়েও কোনও লাভ না হয়নি বলে অভিযোগ। যা নিয়ে স্থানীয়দের মনে ব্যাপক ক্ষোভ ছিল। পুলিশের উপর আস্থা হারিয়ে তাঁরা নিজেরাই রাত পাহারা দিচ্ছিলেন।

এরই মধ্যে রবিবার আলো ফোটার আগেই কল্যাণপুর এবং মুঙ্গিয়াকামি থানাধীন উত্তর মহারানীপুর এডিসি এলাকায় একদল গরু চোর হানা দেয়। ৫টি গরু নিয়ে গাড়িতে করে পালানোর চেষ্টা করতেই তা টের পায় এলাকার লোকজন। সঙ্গে সঙ্গে তাদেরকে আটক করে শুরু হয় গণধোলাই । মারের চোটে সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়ে চোরের দল। এই ঘটনার খবর পেয়ে কল্যাণপুর থেকে অগ্নিনির্বাপক দপ্তরের কর্মীরা ছুটে গিয়ে রক্তাক্ত এবং আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে তাদের জিবি হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানেই তাদের মৃত্যু হয়।

মৃতরা হল সোনামুড়া রবীন্দ্রনগরের বাসিন্দা বিল্লাল মিয়া এবং সোনামুড়া রাঙ্গামাটিয়ার বাসিন্দা জাহিদ হোসেন। অন্যদিকে অভিযুক্ত আহত সইফুল ইসলামকে হাসপাতালে নিয়ে এলে সেখানে তার মৃত্যু হয়। এই ঘটনার খবর পেয়ে তেলিয়ামুড়া মহকুমা পুলিশ আধিকারিক সোনাচরণ জমাতিয়ার নেতৃত্বে বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে তারা। ঘটনাপ্রসঙ্গে পুলিশ জানিয়েছে, চোরের দল টিআর ০১ এএল ১৬৬২ নম্বরের গাড়ি নিয়ে গরু চুরি করে পালানোর সময় মহারানীপুর এলাকায় গ্রামবাসীরা তাদের আটক করে। অবস্থা বেগতিক বুঝে গাড়ি ফেলে পালাতে গেলে স্থানীয়রা তাদের মারধর করে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ এসে তাদের হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানেই মৃত্যু হয় তাদের

সৌজন্য :- সংবাদ প্রতিদিন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.