ED, CBI তৃণমূল নেতাদের তলব করছে ,এবার দুই সংস্থাকেই তলব করল বিধানসভার স্পিকার

Spread the love

একের পর এক TMC নেতাকে তলব করেছে ED, CBI কিন্তু এবার এই দুই সংস্থাকেই তলব করল বিধানসভার স্পিকার

 

ওয়েব ডেস্ক :-  বিভিন্ন অভিযোগের তদন্তে তদন্তকারী সংস্থা যে কাউকে তলব করতে পারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য। এটাই স্বাভাবিক ব্যাপার। কিন্তু এবার সেই তদন্তকারী সংস্থার কর্তাদের তলব করছেন পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়! শুনতে অবাক লাগলেও এমনটাই হতে চলেছে বলে সূত্রের খবর। চার্জশিট জমা দেওয়ার প্রক্রিয়ায় আপত্তি থাকায় সিবিআই এবং ইডির ২ কর্তাকে তলব করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় বলে শোনা যাচ্ছে। নারদা মামলার প্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত তিনি নিচ্ছেন বলে খবর।

জন প্রতিনিধিদের চার্জশিট দেওয়ার ক্ষেত্রে যে আইন রয়েছে, তা লঙ্ঘন করেছে ইডি ও সিবিআই। আর তা ইচ্ছাকৃত ভাবেই করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে কেন্দ্রীয় সংস্থার বিরুদ্ধে। সিবিআই ও ইডির কাছ থেকে এ নিয়ে জানতে চায় বিধানসভা কর্তৃপক্ষ। শনিবার এ নিয়ে চিঠিও পাঠাবে তারা। ওই দুই সংস্থার চিঠির জবাবে কর্তৃপক্ষ সন্তুষ্ট না হলে সশরীরে হাজির হতে হবে সিবিআই ও ইডি অধিকারিকদের। একইসঙ্গে অধ্যক্ষের অনুমোদন ছাড়া ইডি ও সিবিআই কী ভাবে চার্জশিট দিল, সে প্রশ্নও তুলেছে বিধানসভা কর্তৃপক্ষ।

অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, তিন জনপ্রতিনিধির কাছে বিধানসভা মারফত ইডি সমন পাঠাতে বলেছিল। সেই সমনের মাধ্যমে জানা গিয়েছে, জন প্রতিনিধিদের নাম রয়েছে চার্জশিটে। তবে সেই সমন অভিযুক্তদের কাছে পাঠানোর দায়িত্ব বিধানসভার নয়, তাই তারা পাঠাতেও পারবে না।

প্রসঙ্গত, তিন জনপ্রতিনিধি ফিরহাদ হাকিম, মদন মিত্র ও সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে নারদ মামলায় ইডি চার্জশিট দেয়। সেই সূত্রে ইডির যে বিশেষ আদালত রয়েছে, তারা সমন পাঠায় বিধানসভাতে। মূলত অভিযুক্তদের কাছে তা পৌঁছে দিতেই বিধানসভায় তা পাঠানো হয়। এরপরই বিধানসভা কর্তৃপক্ষ জানতে পারে, চার্জশিটে এই তিনজনের নাম রয়েছে। কিন্তু জনপ্রতিনিধিদের চার্জশিটে রাখতে গেলে যে আইন রয়েছে, সেই আইন এ ক্ষেত্রে লঙ্ঘণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ। বিধানসভার সচিবালয় বলছে, ইচ্ছাকৃত ভাবেই তা করা হয়েছে। এই কারণ যেমন রয়েছে ইডি ও সিবিআইকে চিঠি দেওয়ার ক্ষেত্রে।

অন্যদিকে চার্জশিটে নাম রাখতে গেলে অধ্যক্ষকে বিষয়টি জানাতে হয়। কিন্তু তা কেন করা হয়নি তা নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়েছে। শনিবারই এই চিঠি যাচ্ছে বলে খবর।

উল্লেখ্য, নারদ মামলায় ইতিমধ্যেই সিবিআই চার্জশিট পেশ করেছে। তবে এখনও ইডির চার্জশিট জমা পড়েনি। এই প্রেক্ষিতে চূড়ান্ত চার্জশিট জমা দেওয়ার আগে সিবিআই-র স্পেশাল কোর্টে ইডি জানিয়েছে, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র এবং ফিরহাদ হাকিমকে আগামী ১৬ নভেম্বর তারা জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায়। এই আবেদনের প্রেক্ষিতে সিবিআই-র বিশেষ আদালতের নির্দেশ, বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাধ্যমে তিন বিধায়ককে সমন পাঠানো হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.