বেহালায় তৃণমূলের ১২১ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতির বাড়ি লক্ষ্য করে গভীর রাতে গুলি, এলাকায় আতঙ্ক

Spread the love

বেহালায় তৃণমূলের ১২১ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতির বাড়ি লক্ষ্য করে গভীর রাতে গুলি, এলাকায় আতঙ্ক

পরিমল কর্মকার (কলকাতা) : বিধানসভা ভোট পর্ব মিটে যাওয়ার পর গত জুন মাসের মাঝামাঝি বেহালা পূর্ব বিধানসভা এলাকায় এক তৃণমূল কর্মীর বাড়ি লক্ষ্য করে গুলি চালনার ঘটনা ঘটেছিল। বিষয়টি নিয়ে এখনও পুলিশি তদন্ত চলছে বলে জানা গেলেও, এখনও পর্যন্ত দোষীদের চিহ্নিত করা যায়নি, বলে খবর। ফের রবিবার (২২ আগস্ট) গভীর রাতে ১২১ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল সভাপতি রূপক গাঙ্গুলীর বাড়ি লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয় বলে অভিযোগ। কিছু সমাজবিরোধী ও তোলাবাজের অত্যাচারে এলাকার বাসিন্দারা আতঙ্কিত বলে অভিযোগ করেন রূপক গাঙ্গুলী। রূপকবাবু এই তোলাবাজদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী ভূমিকা নিয়েছেন বলে তাকে আক্রমণের মূল লক্ষ্য করা হয়েছে বলে খবর তৃণমূল সূত্রের।

প্রসঙ্গত: রূপক গাঙ্গুলীর বাড়ি ১২১ নম্বর ওয়ার্ডের অন্তর্গত বেহালার জেমস লং সরণিতে। রবিবার রাত প্রায় সাড়ে ১২ টা/১ টা নাগাদ তার বাড়ির সামনেই আচমকা গুলির শব্দ শুনতে পান তার স্ত্রী স্বাতী গাঙ্গুলী। তিনি সঙ্গে সঙ্গেই রূপকবাবুকে ঘটনাটি জানান। এরপরেও তিন রাউন্ড গুলি চলে বলে অভিযোগ। রূপকবাবু বাড়ি থেকে দেখতে পান দুটি মোটর বাইকে করে অজ্ঞাত পরিচয় ব্যাক্তিরা পালাচ্ছে। এরপর দেখেন বাড়ির দোতলায় জানলার কাঁচও ভেঙ্গে গিয়েছে। সকালেই বিষয়টি বেহালা থানায় জানানো হয়েছে বলে জানান তিনি। খবর পেয়ে বেহালা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে দুটি গুলির খোল উদ্ধার করেছে বলে জানা গিয়েছে।

ইতিমধ্যেই বিষয়টি বেহালা পূর্বের বিধায়কা রত্না চট্টোপাধ্যায়, সাংসদ মালা রায়, দক্ষিণ কলকাতা জেলার তৃনমূল সভাপতি দেবাশীষ কুমারকে জানিয়েছেন রূপক গাঙ্গুলী। এব্যাপারে রূপকবাবুকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “এ ঘটনা তোলাবাজরা ঘটিয়েছে। আমি ওয়ার্ড সভাপতির দায়িত্ব নেওয়ার পর এলাকায় তোলাবাজি প্রায় বন্ধই করে দিয়েছি। তারই ক্ষোভে সমাজবিরোধী ও তোলাবাজেরা আমাকে টার্গেট করেছে……।

এই গুলিকাণ্ডের প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে সোমবার ১২১ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূলের যুব নেতা তথা জেলা যুব তৃণমূলের সম্পাদক সোমনাথ ব্যানার্জী (বাবন) বলেন, “১২১ নম্বর ওয়ার্ডে সমাজ বিরোধীদের কোনো ঠাঁই দেওয়া হবেনা… এলাকায় কেউ বিশৃঙ্খলা করার চেষ্টা করলে এলাকার জনগনকে সঙ্গে নিয়ে সমবেতভাবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। সে যেই হোক না কেন ? শান্তিপ্রিয় এলাকাকে যারা অশান্ত করার চেষ্টা করছে, তারা হুঁশিয়ার…. তাদের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেস ও যুব তৃণমূল কংগ্রেস যৌথভাবে প্রতিবাদী ভূমিকা গ্রহণ করবে। বিষয়টি তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বকে জানানো হয়েছে। আশাকরি তারা ব্যবস্থা নেবে। পুলিশ প্রশাসনও নিশ্চয়ই কড়া পদক্ষেপ নেবে বলে বিশ্বাস। অবিলম্বে ঘটনাটির দ্রুত তদন্ত দাবি করছি।”……বলে জানান সোমনাথ ব্যানার্জী (বাবন)।

——————————
পরবর্তী পর্বে …..এই খবরের গতি প্রকৃতি জানতে পরের খবরে চোখ রাখুন…….

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.