কর্নাটকের হিজাব মামলার রায়ে দ্বিমত বিচারপতিরা, এবার রায় দেবেন প্রধান বিচারপতি

Spread the love

কর্নাটক হিজাব রায়ে দ্বিমত বিচারপতিরা, মামলা এবার বৃহত্তর বেঞ্চে

ওয়েব ডেস্ক:-  হিজাব মামলায় কর্নাটক হাই কোর্টের রায় নিয়ে ঐকমত্যে আসতে পারল না সুপ্রিম কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। তবে শেষ পর্যন্ত বিচারপতি হেমন্ত গুপ্ত এবং বিচারপতি সুধাংশু ধুলিয়ার বেঞ্চে ‘খণ্ডিত রায়’ দিয়েছে। গত ১৫ মার্চ কর্নাটক হাই কোর্টের রায়ে বলা হয়েছিল, হিজাব পরাকে ধর্মাচরণের প্রয়োজনীয় অঙ্গ হিসেবে দেখা ঠিক নয়। বৃহস্পতিবারের খণ্ডিত রায়ের ফলে এ বার উচ্চতর বেঞ্চে গেল হিজাব মামলা।

কর্নাটকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে হিজাব মামলার রায়ে নিয়ে একমত হতে পারলেনা সুপ্রিম কোর্টের  দুই বিচারপতি। কর্নাটক সরকারের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্তের পক্ষে রায় দিলেন বিচারপতি হেমন্ত গুপ্ত। অন্যদিকে, কর্নাটক হাইকোর্টের রায় খারিজ করে মামলাকারীদের আবেদন মেনে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের নির্দেশ দেন বিচারপতি সুধাংশ ধুলিয়া । রায় দিতে গিয়ে দুই বিচারপতি ভিন্নমত হওয়ায় এই মামলায় এবার সিদ্ধান্ত নেবেন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি।

প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে থাকা বৃহত্তর বেঞ্চই এই মামলার রায় দেবেন। চলতি বছরের শুরুতেই কর্নাটকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে হিজাব পরে প্রবেশ নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়। এরপরেই স্কুল-কলেজে হিজাব পরে ক্লাসে ঢোকা যাবে না বলে নির্দেশিকা জারি হয়। কর্নাটক হাইকোর্ট সেই নির্দেশিকা বহাল রাখলে মামলা পৌঁছয় সুপ্রিম কোর্টে।

সুপ্রিম কোর্ট হিজাব মামলা
সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি বিচাররপতি হেমন্ত গুপ্ত এবং সুধাংশু ধুলিয়ার বেঞ্চে কর্নাটকে হিজাব মামলার শুনানি শুরু হয়। আবেদনকারীরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব পরার অনুমতি চেয়েছিলেন । ১০ দিন শুনানির পর গত ২২ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্ট এই রায়দান স্থগিত রাখে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব পরা নিষিদ্ধ ঘোষণা হয় কর্নাটকে। বিষয়টি আদালতে গড়ায়।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ধর্মীয় পোষাক পরে ঢোকায় নিষেধাজ্ঞা জারি রাখে হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার রায় দিতে গিয়ে হাইকোর্টের সেই রায়ই বহাল রেখেছে বিচার পতি হেমন্ত গুপ্ত। অন্যদিকে বিচারপতি সুধাংশু ধুলিয়া ৫ ফেব্রুয়ারি কর্নাটক সরকারের জারি করা নির্দেশ খারিজ করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.