কেন্দ্র সরকার ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে টাকা না দেওয়ার প্রতিবাদে বিধায়কের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল খড়সায়

Spread the love

কেন্দ্র সরকার ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে টাকা না দেওয়ার প্রতিবাদে বিধায়কের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল খড়সায়

রাজেন্দ্র নাথ দত্ত :মুর্শিদাবাদ :
গরীব মানুষকে এভাবে বঞ্চিত হতে দেবেন না জানিয়ে পথে নেমে আন্দোলন চালানোর বার্তা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। ব্লকে ব্লকে প্রতিবাদ কর্মসূচি করার কথা বলেছিলেন। সেই মতোই এবার অভিনব প্রতিবাদ মিছিলে সামিল হল মুর্শিদাবাদ জেলার খড়গ্রাম ব্লকের বালিয়া অঞ্চল তৃণমূল তৃণমূল কংগ্রেস।কেন্দ্রীয় সরকার ১০০ দিনের টাকা দিচ্ছে না। তাই অভিনব প্রতিবাদ মিছিল করল বালিয়া অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেস। কেন্দ্রীয় সরকার ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পের টাকা দিচ্ছে না। বার বার নিজের হকের টাকার চেয়েও টাকা পায়নি বাংলা। এদিকে ১০০ দিনের কাজের টাকা না পাওয়ার ফলে বাংলার বিভিন্ন জেলায় ১০০ দিনের কাজ বাকি পড়ে রয়েছে। কেন্দ্র উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বাংলাকে বঞ্চনা করছে। তাই কেন্দ্রের এই বঞ্চনার প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছে তৃণমূল। কেন্দ্রের এই বঞ্চনার কারণে তৃণমূলের পক্ষ থেকে রাজ্যব্যাপী প্রতিবাদ বিক্ষোভ কর্মসূচি করা হচ্ছে।শনিবার বিকেলে বালিয়া অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এই প্রতিবাদ বিক্ষোভ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এদিন খড়সা তিন মাথা মোড় শহীদ ক্ষুদিরাম বসুর মূর্তির সামনে থেকে শুরু হয় এই মিছিল। এদিনের মিছিলের নেতৃত্ব দেন মুর্শিদাবাদ জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের সভাপতি ও খড়গ্রাম বিধানসভার বিধায়ক আশীষ মার্জিত ও বালিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান গোকুল ঘোষ,কান্দী পঞ্চায়েত সমিতির কৃষি কর্মাধ্যক্ষ গৌরব চট্টোপাধ্যায়, খড়গ্রাম পঞ্চায়েত সমিতির কৃষি কর্মাধ্যক্ষ সুপ্রিয় ঘোষ, বিশিষ্ট সমাজসেবী শাশ্বত মুখার্জী, বালিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের সমস্ত সদস্য ও সদস্যারা, মহিলা তৃণমূল কংগ্রেস সহ অন্যান্য তৃণমূল নেতৃত্বরা। তৃণমূলের পক্ষ থেকে সাফ জানানো হয়েছে অবিলম্বে কেন্দ্র বাংলার হকের টাকা না দিলে আগামী দিনে তারা আরও বড় আন্দোলনে নামবেন।
এদিকে শুধুমাত্র কেন্দ্রের বঞ্চনা নয় যেভাবে মূল্য বৃদ্ধি হচ্ছে এর প্রতিবাদেও সরব হয়েছে তৃণমূল।এদিন তৃণমূলের প্রতিবাদ মিছিলের শুরুতেই খড়সা ক্ষুদিরাম বসুর মূর্তির সামনে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। এবিষয়ে মুর্শিদাবাদ জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের সভাপতি ও খড়গ্রাম বিধানসভার বিধায়ক আশীষ মার্জিত বলেন, বাংলা বরাবরই কেন্দ্রের কাছে বঞ্চনার শিকার হচ্ছে। বাংলার প্রাপ্য টাকা দেওয়া হচ্ছে না, ১০০ দিনের টাকা না দেওয়ার ফলে অনেকেই টাকা পাচ্ছেন না। তাই প্রাপ্য টাকার দাবিতে আন্দোলন চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.