যোগী সরকারের নাম পরিবর্তনের ছক এবার ঐতিহাসিক দেওবন্দের নাম দেববৃন্দ করার প্রস্তাব বজরং দলের

Spread the love

 

যোগী সরকারের নাম পরিবর্তনের খেলায় সুর মিলিয়ে ঐতিহাসিক দেওবন্দের নাম দেববৃন্দ করার প্রস্তাব বজরং দলের

নিউজ ডেস্ক : আলীগড়ের নাম পরিবর্তন করে হরিগড় এবং ময়ীনপুরীর নাম মায়ানগরের করার পর দেওবন্দের নাম পরিবর্তনের দাবিও উঠতে শুরু করেছে। এই বিষয়ে রাজ্যের যোগী সরকারকে চিঠি পাঠিয়েছে বজরং দল।

দেওবন্দ উত্তর প্রদেশের সাহারানপুর জেলার পাঁচটি নির্বাচনী এলাকার একটি যেখানে মুসলিম জনসংখ্যা সংখ্যাগরিষ্ঠ। দেওবন্দে রয়েছে প্রসিদ্ধ ইসলামী মাদ্রাসা যা দেওবন্দ মাদ্রাসা নামে সুপরিচিত।

বজরং দলের পশ্চিম উত্তর প্রদেশ ইউনিটের আহ্বায়ক বিকাশ ত্যাগী বলেন, দেওবন্দকে প্রথমে মাতা বালা সুন্দরী দেবী মন্দির দিয়ে চিহ্নিত করা হয়েছিল, ইসলামী মাদ্রাসা নয়। তিনি বলেছিলেন যে মহাভারতের সময় পাণ্ডবরা তাদের নির্বাসনের বহু বছর এখানে কাটিয়েছিলেন। এখন উত্তর প্রদেশের যোগী আদিত্যনাথ সরকার মুঘলিয়ার নাম মুছে দিচ্ছে। এমন অবস্থায় দেওবন্দ জেলার নামও পরিবর্তন করে দেববৃন্দ করা উচিত। এই দাবির বিষয়ে তিনি রাজ্যের নগরোন্নয়ন মন্ত্রী আশুতোষ ট্যান্ডনের কাছে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন।

২০১৭ সালে বজরং দলের আগে বিজেপি বিধায়ক ব্রিজেশ সিংও অনুরূপ দাবি করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন যে রনকান্দি জাখওয়ালা এবং জাদোদা পান্ডার মতো স্থানগুলি দেওবন্দের হিন্দু পুরাণের সাথে ঐতিহাসিক সংযোগের সাক্ষ্য দেয়। তাই এই জায়গার নাম সংশোধন করা উচিত।

এ প্রসঙ্গে ‘সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন’-এর সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ কামরুজ্জামান রেডিও তেহরানকে এক বিবৃতিতে বলেন, ‘উত্তর প্রদেশের বিধানসভা নির্বাচন খুব সন্নিকটেই। বিগত বছরগুলোতে মুখ্যমন্ত্রী যোগি আদিত্যনাথ উত্তর প্রদেশের মতো রাজ্যকে ‘উত্তম প্রদেশ’ থেকে ‘অপরাধ প্রদেশ’-এ পরিণত করেছে। তারা উন্নয়নে সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছে। ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ’ –এর স্লোগান (সকলের জন্য সবার উন্নয়ন) এক মহাপ্রহসনে পরিণত হয়েছে।

করোনা রোগীরা অক্সিজেনের অভাবে ছটফট করে মারা গেছে। মৃত্যুর পরে তাঁদের ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী দাহ পর্যন্ত করতে উত্তর প্রদেশ সরকার সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছে। মৃতদেহগুলোকে সেতুর উপর থেকে নীচেয় নদীতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। আবার হাজার হাজার লাশ নদীতে ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে। কোথাও কোথাও লাশগুলোকে নদীর চরে পুঁতে দেওয়া হয়েছে। এই অপদার্থ একটি সরকার আবার পুনরায় ক্ষমতায় আসার জন্য বিজেপি এবং তার সাঙ্গপাঙ্গরা গোটা দেশজুড়ে আবার একটা ধর্মীয় উন্মাদনা তৈরি করতে চাচ্ছে। সেই জন্যই দেওবন্দের মতো একটি প্রাচীন শহর যেখানে দারুল উলুম মাদ্রাসা আছে এবং এই দারুল উলুম দেওবন্দ মাদ্রাসার জন্য গোটা বিশ্বজুড়ে খ্যাতি অর্জন করেছে দেওবন্দ নামটি। ফলে এরকম প্রাচীন ঐতিহাসিক নামগুলোকে তারা হিন্দুকরণ করতে চাচ্ছে। একটা এক নির্লজ্জ পদক্ষেপ। আমরা আশা করছি যে যোগি সরকারের এই নির্লজ্জ পদক্ষেপকে উত্তর প্রদেশের জনগণ মানবে না। এবং খুব শিগগিরি যোগি সরকারের পতন অনিবার্য এবং মানুষ তাদেরকে উচিত শিক্ষা দেবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.