বড়ো দিনের আনন্দ শহর ছাড়িয়ে গ্রামাঞ্চলে, বেকারিদের মুখে ফুটেছে হাসি,

Spread the love

বড়ো দিনের আনন্দ। শহর ছাড়িয়ে গ্রামাঞ্চলে, বেকারিদের মুখে ফুটেছে হাসি,

জীবন্তি লাল চা কেকের স্টলে ভিড়

জৈদুল সেখ, জীবন্তি, কান্দি, মুর্শিদাবাদ

বড় দিনের সাজে সেজে উঠেছে শহরের সঙ্গে সঙ্গে প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চল। বড় দিন মানেই মুখ মিষ্টি কেক দিয়ে। নামী দামী কোম্পানির কেকের দোকান থেকে শুরু করে পাড়ার মোড়ে মোড়ে স্থায়ী-অস্থায়ী দোকানে এখন রঙিন কেকের পসরা। এখন বড়ো দিনের উৎসব শহরের গণ্ডী টপকে পৌছে গিয়েছে জেলায় জেলায় প্রত্যন্ত গ্রামেও।
কান্দির বিভিন্ন এলাকার সঙ্গে সঙ্গে জীবন্তি বাজারে বড়ো দিনের কেকের চাহিদা অনেকটা বেশি। জীবন্তি লাল চা কেকের স্টটেল মালিক জসীমউদ্দীন বলেন “স্থানীয় কেক থেকে শুরু করে নামীদামি কোম্পানির ছানা মোয়া ফল সহ একাধিক ভ্যারাইটিজ কেক পাওয়া যায় তাই দূর দূরান্তের ক্রেতা এখানে কেক কিনতে আসেন। ”

প্রসঙ্গত প্রচারেরের রমরমায় পৌছে গিয়েছে নামী স্থানীয় বেকারিদের সঙ্গে সঙ্গে নামীদামি কোম্পানির কেক। গ্রামের অলিতে-গলিতে কেকের পসরা সাজিয়ে তৈরি হয়েছে দোকান। অনেক স্থানীয় বেকারিগুলিকে নামীদামি কোম্পানির সঙ্গে পাল্লা দিতে হচ্ছে। কিন্তু প্রত্যন্ত মানুষের মুখে এখনও কম পয়সায় কেক তুলে দিচ্ছে স্থানীয় বেকারিগুলিই। গ্রামের নিম্নবৃত্ত বা নিম্নমধ্যবৃত্ত ক্রেতারাই এদের ভরসা। ফলে বছর শেষে এই বেকারিগুলিতে ব্যস্ততা তুঙ্গে।
যদিও গত বছরে লকডাইনের তুলনায় এ বছরে কেকের চাহিদা অনেকটাই বেশি বলে জানিয়েছেন কেক ব্যবসায়ীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.