সব আসনেই তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা আগামী শুক্রবার ঘোষণা হতে পারে

Spread the love

ওয়েব ডেস্ক :-   এখনও পর্যন্ত শাসক-বিরোধী কোনও শিবিরই কোনও প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেনি।  সকলেরই চূডা়ন্ত প্রস্তুতি পর্ব চলছে। তবে সূত্রের খবর, শাসকদল তৃণমূল  নিজেদের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করতে চলেছে আগামী শুক্রবারই। ২৯৪ আসনের জন্য পূর্ণাঙ্গ প্রার্থীতালিকা ঘোষণা করবেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।  ভোট ঘোষণার এক সপ্তাহের মধ্যে তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা প্রকাশিত হতে চলেছে, যা দলের ইতিহাসে কিছুটা ব্যতিক্রম।

একুশের ভোটে ইতিমধ্যে বাংলা সরগরম তবে এসইউসিআই বাদে এখনও পর্যন্ত কেউ প্রকাশ করতে পারে নি চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা। এবার তৃণমূল বিধায়ক, মন্ত্রীদের প্রার্থী হওয়ার রাশ প্রশান্ত কিশোরের সুপারিশের পাশাপাশি অনেকটাই নির্ভর করছে কাউন্সিলর ও ব্লক সভাপতিদের মতামতের উপরে। কোন এলাকার বিধায়ক বা মন্ত্রীদের পারফরম্যান্স কেমন, তা নিয়ে কাউন্সিলর ও ব্লক সভাপতিদের দেওয়া মার্কশিট অনেকটাই নির্ভর করবে এবছর তিনি টিকিট পাবেন কি না। সূত্রের খবর, কাউন্সিলর ও ব্লক সভাপতিদের এই মনোভাব বুঝতে তাই শুক্রবার চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা ঘোষণার আগে বৃহস্পতিবার তৃণমূল ভবনে তাঁদের নিয়ে বৈঠকে বসছে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব।

কোন কাউন্সিলর তাঁর নিজের বিধায়ককে কাজ এবং জনসংযোগের নিরিখে কত নম্বর দিচ্ছেন, সেই মার্কশিটের ভিত্তিতে প্রার্থী চূড়ান্ত করতে চলেছেন তৃণমূলের ভোটকুশলী পিকে । পারফরম্যান্স ভাল হলেই যে কেউ ২০২১এ নির্বাচনী লড়াইয়ে ঘাসফুল শিবিরের যোগ্য প্রার্থী হবেন, তা নাও হতে পারে। পিকে ‘স্যরে’র বিচারে বিধায়ক বা মন্ত্রী কতটা যোগ্য, তা ঠিক হবে কাউন্সিলরদের মতামতের ভিত্তিতে।

একজন বিধায়কের তত্ত্বাবধানে যে ক’জন কাউন্সিলর কাজ করেন, তাঁদের থেকে একদফা রিপোর্ট নেওয়া হয়েছে ইতিমধ্যে। এরপর তাঁদের সঙ্গে আরও বিস্তারিত আলোচনা করতে বৃহস্পতিবার তৃণমূল ভবনে কাউন্সিলরদের নিয়ে বৈঠকে বসছেন দলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সি, মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে কাউন্সিলররা কে কী বক্তব্য রাখেন, সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে।

একুশের ভোটে  তৃণমূল প্রার্থী তালিকায় চমক থাকার সম্ভাবনা প্রচুর। একদিকে টলি ইন্ডাস্ট্রির একঝাঁক অভিনেতা সম্প্রতি যোগ দিয়েছেন তৃণমূলে। শুক্রবারও দলে যোগ দিয়েছেন সাঁওতালি চলচ্চিত্র জগতের তারকা বীরবাহা হাঁসদা। এঁদের অধিকাংশেরই এবার টিকিট পাওয়ার সম্ভাবনা। এছাড়া এবারের প্রার্থী তালিকায় তারুণ্যের প্রাবল্য থাকার সম্ভাবনাও রয়েছে। ছাত্রনেতা তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য,  দেবাংশু ভট্টাচার্য, জয়া ভদ্রের মতো ছাত্রনেতৃত্ব একুশের বিধানসভা ভোটে লড়তে পারেন শাসকদলের হয়ে। ফলে তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় অনেক নবীনের নাম থাকবে, তেমনটাই মনে করা হচ্ছে। অন্যদিকে দলীয় সূত্রে খবর, আশি বছরের ঊর্ধ্বে কোনও জনপ্রতিনিধিই এবারের ভোটে টিকিট পাবেন না। তাঁদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত তৃণমূল সুপ্রিমোর। বৃহস্পতিবার দলের কাউন্সিলর  ও জেলার ব্লক সভাপতিদের সঙ্গে তৃণমূল ভবনে একপ্রস্ত বৈঠক হবে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের। তারপর শুক্রবারই চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করবেন দলের সুপ্রিমো।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.