নবান্নে ফের বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতাই – প্রকাশ বিভিন্ন সমীক্ষায়

Spread the love

১৮৯টি আসন জিততে পারে তৃণমূল, ৫০ শতাংশের বেশি ভোট পেয়ে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতাই – প্রকাশ সমীক্ষায়

ওয়েব ডেস্ক :- সমীক্ষা মানে ফলাফল নয় ,আন্দাজ মাত্র । সেই নিরিখে দেখা যাক কার দখলে আসছে বাংলা ।  বিধানসভা ভোটে আসনের নিরিখে আপাতত সংখ্যাগরিষ্ঠতার ধার ঘেঁষে রয়েছে তৃণমূল। দ্বিতীয় বৃহত্তম দল হিসেবে বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতার নির্দিষ্ট অঙ্ক থেকে এখন পর্যন্ত বেশ কিছুটা পিছিয়ে। আর বাম-কংগ্রেস জোট এবং অন্যদের সকলকে নিয়েও সম্ভাব্য আসনের সংখ্যা বড়জোর ৩০। সোমবার এবিপি আনন্দ-সিএনএক্স-এর সাম্প্রতিক জনমত সমীক্ষায় এই চিত্র ফুটে উঠেছে।

 

রাজ্যে বিধানসভার মোট আসন ২৯৪। তবে বর্তমান সমীক্ষায় রাজ্যের সব ক’টি অর্থাৎ ৪২টি লোকসভা কেন্দ্রকে ভিত্তি করে তার অন্তর্গত ১১২টি বিধানসভা কেন্দ্র বেছে নেওয়া হয়েছে। মহিলা ও পুরুষ মিলিয়ে কথা বলা হয়েছে ৮ হাজার ৯৬০ জনের সঙ্গে। ২৩ জানুযারি থেকে ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এই সমীক্ষা চালানো হয়েছে। এই ধরনের সমীক্ষা সব সময়ই স্বীকৃত পদ্ধতি মেনে করা হয়। তবে তাতে কিছু অনিশ্চয়তাও থাকে। তাই সমীক্ষার ফলাফল যা-ই হোক, সেটা চূড়ান্ত বলে মেনে নেওয়ার কারণ নেই। এটি একটি নির্দিষ্ট সময়কালে নেওয়া জনমতের এক প্রতিফলন মাত্র।

তারই পরিপ্রেক্ষিতে সমীক্ষার ফলাফল অনুযায়ী, তৃণমূল জিততে পারে ১৪৬ থেকে ১৫৬ আসন। একক শক্তিতে সরকার গঠনের জন্য যে কোনও দলের দরকার কমপক্ষে ১৪৮ আসন। সে দিক থেকে সমীক্ষার ফল অনুযায়ী, তৃণমূলের একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া নিয়ে কিছুটা সংশয় থেকেই যায়। আবার রাজ্যে ক্ষমতা দখলের লক্ষ্যে ঝাঁপিয়ে পড়া বিজেপি, এই সমীক্ষা অনুযায়ী, ১১৩ থেকে ১২১ আসন পেতে পারে। যা ১৪৮-এর থেকে অনেকটাই কম। এই সমীক্ষায় বাম-কংগ্রেস জোটের সম্ভাব্য আসন ২০ থেকে ২৮। এবং অন্যান্য (গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা ইত্যাদি) পেতে পারে ১ থেকে ৩টি।

 

আর কয়েকদিনের মধ্যেই রাজ্যে ঘোষণা হবে নির্বাচনের নির্ঘণ্ট। তার আগে সর্বশেষ জনমত সমীক্ষায় আভাস তৃণমূলের প্রত্যাবর্তনের। সাইনোভাম রিসার্চ প্রাইভেট লিমিটেড নামে একটি সংস্থা ২৩,১০০ মানুষের কাছ থেকে মতামত নিয়ে করেছে এই সমীক্ষা।

এই মুহূর্তে রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন হলে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে ৫৯% মানুষের পছন্দ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই, বলছে এই সমীক্ষা। এই দৌড়ে দিলীপ ঘোষকে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে চান মাত্র ১৫% মানুষ। সুজন চক্রবর্তীকে পছন্দ করছেন মাত্র ৫% মানুষ, এবং সদ্য বিজেপিতে যাওয়া শুভেন্দু অধিকারীকে পছন্দ করছেন মাত্র ২% মানুষ। ১৫% মানুষের পছন্দ অন্যান্যরা।
ad

এই জনমত সমীক্ষা বলছে, ২০২১ এর নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস পেতে পারে ৫০.২% ভোট। অন্যদিকে বিজেপি পেতে পারে ৩৯.১% ভোট এবং বাম-কংগ্রেস জোট পেতে পারে ১০.৭% ভোট।
মোট ২৯৪টি আসনে, ১৮৯টি আসন দখল করতে পারে তৃণমূল কংগ্রেস, বলছে এই এক্সিট পোল। বিজেপি পেতে পারে ৯৫টি আসন। অন্যদিকে বাম-কংগ্রেস জোট পেতে পারে ৯টি আসন এবং অন্যান্যরা ১টি আসন।
নন্দীগ্রামের ভোটাররা কাকে ভোট দেবেন? এই সমীক্ষা অনুযায়ী তৃণমূল কংগ্রেস পেতে পারে ৬১% ভোট। অন্যদিকে বিজেপি পেতে পারে ৩৫% ভোট এবং বাম-কংগ্রেস জোট পেতে পারে ৪% ভোট।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.