ভোটযুদ্ধের প্রাক্কালে ফের বিপাকে বিজেপি মহিলা মোর্চার নেত্রীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ

Spread the love

ওয়েভ ডেস্ক:- বেজায় অস্বস্থিতে বাঁকুড়া বিজেপি । ভোটযুদ্ধের প্রাক্কালে ফের বিপাকে পড়ল বিজেপি। এবার মহিলা মোর্চার নেত্রীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠল বিজেপির বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার নয়া সভাপতি সুজিত আগস্থির বিরুদ্ধে। এই অভিযোগ ঘিরে প্রবল চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে বাঁকুড়ায়। উঠেছে নিন্দার ঝড়। স্বাভাবিকভাবেই অস্বস্তিতে দল।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে , অভিযোগকারিণী বাঁকুড়া বিজেপির মহিলা মোর্চার প্রাক্তন সম্পাদক। মঙ্গলবার সকালে তাঁর একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। যেখানে তিনি বলেছেন, সুজিত আগস্থি তাঁর উপর যৌন নির্যাতন করেছেন। যদিও এদিন বিকেল পর্যন্ত এই ঘটনার কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি, এমনটাই দাবি বাঁকুড়া জেলা পুলিশের। ওই ভিডিও বার্তায় অনিতা দেবী বলেছেন, বহুদিন ধরেই অভিযুক্ত তাঁর সঙ্গে অশালীন আচরণ করেছিলেন। গত ২রা ফেব্রুয়ারি অভিযুক্ত নেতার বিরুদ্ধে রাজ্য নেতৃত্বের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি। এরপর অত্যাচার বাড়ে। যৌন নির্যাতন করা হয় তাঁকে। তবে পুলিশের কাছে এখনও কোনও লিখিত অভিযোগ কেন জানাননি ? সেই প্রশ্নের উত্তরে নেত্রীর স্বামী বলেন, দলের তরফে এবিষয়ে পুলিশের দ্বারস্থ না হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। জানা গিয়েছে, অভিযোগকারিণী দলের রাজ্য অফিসে গিয়ে ওই নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান। তারপর থেকেই অভিযোগকারিণীর উপর মানসিক চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছিল। সম্প্রতি বাড়ি ফাঁকা থাকার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে নিগৃহীতার উপর যৌন নির্যাতন করেন অভিযুক্ত। এপ্রসঙ্গে জেলা পুলিশ সুপার কোটেশ্বর রাও বলেন, “পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করার পরই ঘটনার তদন্ত শুরু হবে। এখনও পর্যন্ত পুলিশের কাছে কোনও অভিযোগ হয়নি।”

এ বিষয়ে পুলিশ আরো জানিয়েছে, অভিযুক্তের বাড়ি বাঁকুড়া জেলার বড়জোড়া ব্লকের মালিয়াড়া গ্রামে। অভিযোগকারিণী বিজেপি নেত্রীর বাড়ি ওই ব্লকের বেলিয়াতোড়ের বাউরি পাড়া সংলগ্ন এলাকায়। স্থানীয় সূত্রের খবর, বেলিয়াতোড়ের ওই পরিবার বরাবরই বিজেপির সঙ্গে যুক্ত। এলাকায় দলনেত্রী হিসেবেও তিনি পরিচিত। গত দু’বছর ধরে তিনি বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার মহিলা মোর্চার সম্পাদক পদে ছিলেন। সম্প্রতি তাঁকে পদ থেকে সরানো হয়েছে। এদিকে, অভিযুক্ত সুজিত নানা অনৈতিক কাজকর্মের সঙ্গেও যুক্ত বলে সূত্রের খবর। জানা গিয়েছে, এর আগেও একাধিকবার ওই মহিলা নেত্রী তাঁর বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন। দলের তরফেও সতর্ক করা হয়েছিল ওই বিজেপি নেতাকে।

সৌজন্য :- এখন খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.