বেহালায় স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে ইডি ও সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার মমতা

Spread the love

বেহালায় স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে ইডি ও সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার মমতা

পরিমল কর্মকার (কলকাতা) : ভারতের ৭৬তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ১৪ই আগস্ট বেহালা ম্যান্টনে তৃণমুল কংগ্রেসের উদ্যোগে পালিত হলো মধ্যরাতে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন। তবে মঞ্চে এইদিন সন্ধ্যায়ই উপস্থিত হন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়, মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, সাংসদ মালা রায়, সাংসদ শুভাশীষ চক্রবর্তী, বিধায়িকা রত্না চ্যাটার্জী ও কাউন্সিলর সঞ্চিতা মিত্র, সংহিতা দাস, সুশান্ত ঘোষ, মেয়র পারিষদ অভিজিৎ মুখার্জী, তারক সিং সহ অন্যন্য কাউন্সিলররা এবং বেহালার বিশিষ্ঠ তৃণমুল নেতা অঞ্জন দাস প্রমূখ।

এদিন মঞ্চে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মমতা বন্দোপাধ্যায় বলেন, তিনি ছোটবেলা থেকেই স্বাধীনতা সংগ্রামের দেশাত্মবোধক গানের প্রতি আসক্ত ছিলেন। “কদম কদম বাড়ায়ে যা…” “মুক্তির মন্দির সোপানোতলে….” ইত্যাদি নানারকম গান নিয়ে তিনি সঙ্গীত চর্চা করতেন। এইসঙ্গেই তিনি জানান, মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তিনি এক টাকাও বেতন নেন না। তিনি ইতিমধ্যেই ১২০ টি বই লিখেছেন। তার রয়ালিটি হিসেবে তিনি যে টাকা আয় করেন, তার থেকে তিনি ইনকাম ট্যাক্স ও টিডিএস মিলিয়ে মোট ৮ লক্ষ টাকা ট্যাক্স দেন। তার লেখা বহু বই ‘বেস্ট সেলার’ এর স্বীকৃতি লাভ করেছে বলেও জানান তিনি।

এছাড়াও এদিন মঞ্চ থেকে কেন্দ্রীয় সরকার এবং বিজেপি সহ বিরোধীদের তীব্র আক্রমণ করেন তিনি। তিনি বলেন, গায়ের জোরে বাংলা দখল করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার তৃণমূলের নেতা-নেত্রীদের পিছনে ইডি আর সিবিআইকে লেলিয়ে দিচ্ছে। তাই এদিন ইডি ও সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলেন তিনি। অনুব্রতকে কেন সিবিআই গ্রেফতার করলো — এ প্রশ্নও তুলেছেন তিনি।

এইসঙ্গেই তিনি বলেন, শুভাশীষ, ববি, অভিষেখকেও গ্রেফতার করতে চাইলে গ্রেফতার করুক ওরা। তারপর “জেল ভরো” আন্দোলনের কর্মসূচি নেবে তৃণমূল কংগ্রেস। এমনকি তাকে সিবিআই গ্রেফতার করলে কর্মীরা রাস্তায় নামবেন কিনা —- দলীয় কর্মীদের কাছে একথাও জানতে চান স্বয়ং মমতা বন্দোপাধ্যায়। তিনি চলে যাওয়ার পর মঞ্চে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন শুচিস্মিতা সহ অন্যান্য শিল্পীরা।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.