দেগঙ্গায় মাদ্রাসার ভিত্তি স্থাপন অনুষ্ঠানে এসে বাধার মুখে পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী

Spread the love

দেগঙ্গায় মাদ্রাসার ভিত্তি স্থাপন অনুষ্ঠানে এসে হামলার মুখে পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী

নিজস্ব সংবাদদাতা :-    বুধবার সকালে দেগঙ্গার আমুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের দক্ষিণ বরুণীতে ফুরফুরা শরীফ আহলে সুন্নাতুল জামাত এ পরিচালিত দক্ষিণ বরুণী মোজাদ্দেদীয়া পীর জুলফিক্কারিয়া সিদ্দিকিয়া মাদ্রাসার নতুন বিল্ডিং এর ভিত্তি স্থাপনের উদ্বোধন করতে এসেছিলেন উক্ত সংগঠনের কর্ণধার পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী। অনুষ্ঠান শেষে ফেরার পথে এলাকার কিছু মানুষজন তার গাড়ি দাঁড় করিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। মে এলাকায় একটি মাদ্রাসা রয়েছে তার পরেও কেন আবার মাদ্রাসা তৈরি করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত এখানেই মাওঃ আব্দুল মাতিন সাহেবদের অল ইন্ডিয়া সুন্নাত ওয়াল জামাত পরিচালিত একটি বালিকা মাদ্রাসা রয়েছে।

তবে আব্বাস সিদ্দিকী কোন রকম প্রতিক্রিয়া দেননি এবং গাড়ি থেকে নামেও নি। সেই সময় আব্বাস সিদ্দিকীর সমর্থক ও গাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে বাধা দেওয়া লোকজনদের মধ্যে একটা উত্তেজনা তৈরী হয়। আব্বাস সিদ্দিকীর সমর্থকরা গাড়ি চলে যাওয়ার রাস্তা তৈরি করে দিলে আব্বাস সিদ্দিকী গাড়ি নিয়ে চলে যান।

আব্বাস সিদ্দিকীর সমর্থকরা অভিযোগ করেন বিক্ষোভকারীরা রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে এমনকি গাড়ি ভাঙচুর করার চেষ্টা করা হয়, এবং বিক্ষোভকারীরা সকলেই শাসকদের কর্মী সমর্থক। তবে স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের পক্ষ থেকে এই ঘটনায় তাদের জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে।

এই ঘটনার তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে দেগঙ্গা দক্ষিণ বরুণী এলাকায়, দেগঙ্গা থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে এলাকায় পরিস্থিতি থমথমে। প্রসঙ্গত একুশের বিধানসভা নির্বাচনে আব্বাস সিদ্দিকী আইএসএফ দল তৈরি করে বাম কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করে নির্বাচনে লড়াই করে। দেগঙ্গাতে আইএসএফ এর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিল। সেই নিয়ে একটা চাপা ক্ষোভ ছিল তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের মধ্যে। ভোট পরবর্তীতে দেগঙ্গায় আব্বাস সিদ্দিকীর আসা ও বিক্ষোভ তার বহিঃপ্রকাশ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.