মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিপুল ভোটে জয়ে উল্লাসিত বেহালার ১২১ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কর্মীরা

Spread the love

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিপুল ভোটে জয়ে উল্লাসিত বেহালার ১২১ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কর্মীরা

পরিমল কর্মকার (কলকাতা) : রবিবার (৩ অক্টোবর) দুপুরে ভবানীপুর উপনির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ হতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিপুল জয়ে এদিন উল্লাসে ফেটে পড়ে ১২১ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কর্মীরা। তৃণমূলের দক্ষিণ কলকাতা জেলার যুব সম্পাদক সোমনাথ ব্যানার্জীর (বাবন) নেতৃত্বে এলাকায় শুরু হয়ে যায় আনন্দ উচ্ছ্বাসের পর্ব। মিষ্টি বিতরণ করা থেকে শুরু করে সারাদিন ধরে দলীয় কর্মীদের মধ্যে চলে চা-পান পর্ব। মাঝে মাঝেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয়ধ্বনিতে ফেটে পড়ে ১২১ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন প্রান্ত। এই জয়োল্লাসে মহিলাদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো।

এব্যাপারে জেলার যুব সম্পাদক সোমনাথ ব্যানার্জী (বাবন) বলেন, “আমি ও আমাদের ওয়ার্ডের কর্মীরা নিশ্চিত ছিলাম দিদি বিপুল ভোটে জিতবেন। তবুও দিদির জন্য প্রতিদিনই আমি ভগবানের কাছে প্রার্থনা করে হোম-যজ্ঞ করেছি। এই উপ-নির্বাচনের প্রচারে আমি ও আমাদের দলীয় কর্মীরা প্রায় নিয়মিত ভবানীপুরে উপস্থিত থেকে মিটিং-মিছিলে অংশ নিয়েছি। তাই দিদির রেকর্ড ভোটে জয়ে আমাদের পরিশ্রম সার্থক হয়েছে বলে আমরা সকলে গর্বিত..….।”

তিনি আরও বলেন, “দিদির পাশে ছিলাম, আছি, থাকবো।” এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “আগামী ২০২৪ সালে আমরা দিদিকে দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পেতে চাই। এজন্য আমরা দলীয় কর্মীরা দিদির নির্দেশে লক্ষ্মীর ভান্ডার থেকে শুরু করে সমস্ত প্রকল্পগুলি এলাকার মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার অঙ্গীকার করেছি। সেগুলির অভূতপূর্ব সাড়াও মিলেছে। তাঁর সমস্ত কর্মসূচিগুলি রূপায়ণ করতে আমরা শীঘ্রই ওয়ার্ডের হাজার হাজার কর্মীকে সঙ্গে নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়বো বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। দিদির এই বিপুল জয়ে আমরা আমাদের পক্ষ থেকে তাঁকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি….।” এমনটাই জানালেন তৃণমূলের জেলা সম্পাদক সোমনাথ ব্যানার্জী (বাবন)।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.